বাদ ড. কামাল: বহিষ্কার-পালটা বহিষ্কারে ‌‘গণফোরাম’

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:২০, বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৬ আশ্বিন ১৪২৯

ড. কামাল হোসেনকে প্রধান উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি ও ডা. মিজানুর রহমানকে সভাপতি পরিষদের সদস্যপদসহ দলের সাধারণ সদস্য পদ থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে। ২০ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরামের একাংশের সভাপতি মোস্তফা মহসিন মন্টু ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

 

মহসিন মন্টু জানান, গণফোরামের সঙ্গে দীর্ঘদিন সম্পর্কহীন, দল থেকে পদত্যাগকারী নিষ্ক্রিয় কিছু ব্যক্তি নিয়ে গণফোরাম নাম দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে কমিটি ঘোষণা সম্পূর্ণ গঠনতন্ত্র পরিপন্থী ও অগণতান্ত্রিক। ইচ্ছা করলেই কমিটি দেয়া যায় না। এর সম্পূর্ণ এখতিয়ার থাকে কাউন্সিলরদের কাছে।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি ও ডা. মো. মিজানুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০১ সদস্যের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ কমিটি ঘোষণার পর সদস্যের নাম পড়ে শোনান নতুন সাধারণ সম্পাদক ড. মিজানুর রহমান।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপিসহ আরও কয়েকটি রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে গঠিত হয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এর শীর্ষ নেতা হন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। নির্বাচনে মাত্র একটি আসন পায় দলটি। তবে গণফোরামের ভেতরে এই নির্বাচনের পর বিএনপির সঙ্গে জোট গঠনসহ নানা ইস্যুতে অভ্যন্তরীণ সংকট তৈরি হয়।

সবশেষ ২০১৯ সালের ২৬ মে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে অনুষ্ঠিত গণফোরামের কেন্দ্রীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দলটিতে টানাপোড়েন প্রকাশ্যে আসে। ওই সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে মোস্তফা মহসিন মন্টুকে সরিয়ে দলের নবাগত ড. রেজা কিবরিয়াকে দায়িত্ব দেওয়া হয়,যদিও রেজা কিবরিয়াও আর গণফোরাম-এ নেই। এরপর থেকেই বহিষ্কার-পালটা বহিষ্কারের পথ ধরে ভাঙনের মুখে হাঁটতে থাকে দলটি।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article