যুক্তরাষ্ট্রের বি-২১ স্টিলথ বোমারু বিমান কতটা দুর্ধর্ষ?

  অনলাইন ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৪:০১, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

৩০ বছরেরও বেশি সময় পর প্রথমবারের জন্য সম্পূর্ণ নতুন একটি স্টিলথ বোমারু বিমান উন্মোচন করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী। বি-২১ রেইডার নামে বিমানটি শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) সামনে আনা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


 

স্টিলথ বোমারু বিমানটির পুরো নাম নরথ্রপ গ্রুমান বি-২১ রেইডার। বলা হচ্ছে, পরবর্তী-প্রজন্মের দূরপাল্লার কৌশলগত এই বোমারু বিমান নির্মাণ করার জন্য ২০১০ সালে ২৫.১ বিলিয়ন (২ হাজার ৫১০ কোটি) ডলারের বাজেট বরাদ্দ করা হয়েছিল।

এ বিমানের নির্মাতা নরথ্রপ গ্রুম্যান এফ-৩৫ ও বি-২ স্পিরিট বোমারু বিমানের ঘাটতিগুলো দূর করে এটি তৈরি করেছে।

ইউক্রেইন যুদ্ধের অস্থিরতার মধ্যেই রহস্য আর গোপনীয়তার চাদরে ঢাকা ‘বি-২১ রেইডার’ স্টিলথ বোমারু বিমানটি প্রকাশ্যে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন বিমান বাহিনী। নির্মাতা কোম্পানি নরথ্রপ গ্রুমানের দাবি, সর্বকালের সর্বাধুনিক সামরিক বিমান বি-২১ রেইডার।

অত্যাধুনিক রাডারের চোখ ফাঁকি দেয়ার সক্ষমতার জন্য সামরিক খাতে আলাদা কদর আছে স্টিলথ প্রযুক্তির বিমানের। সামরিক বিমানে এ প্রযুক্তির প্রথম কার্যকর প্রয়োগকারী হিসেবে তিন দশক ধরে আন্তর্জাতিক আকাশ সীমায় নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখতে পেরেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী।

নরথ্রপ গ্রুমান বি-২১ রেইডার নির্মাণের কাজটি জিতে নিয়েছিল ২০১৫ সালেই। কিন্তু গত সাত বছর ধরে এর নকশা ও নির্মাণ প্রক্রিয়া নিয়ে কঠোর গোপনীয়তা অবলম্বন করা হয়েছে। মার্কিন বিমানবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) ক্যালিফোর্নিয়ার পামডেলে গ্রুমানের কারখানায় নতুন এই স্টিলথ বম্বার উন্মোচন করা হবে।

বি-২১ রেইডারের পূর্বসূরী স্টিলথ বোমারু বিমান ‘বি-২ স্পিরিট’-এর নকশাও করেছিল নরথ্রপ গ্রুমান। একবারে ২০ টন বোমা বা বিধ্বংসী অস্ত্র বহনের সক্ষমতা আছে ‘বি-২ স্পিরিট’-এর।

মার্কিন বিমানবাহিনী প্রধান জেনারেল চার্লস ব্রাউন জুনিয়র বলেন, বি-২১ রেইডারের উন্মোচন বিমান বাহিনী ও জাতির জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত হতে যাচ্ছে। সামরিক বাহন হিসেবে বি-২১ রেইডারের সক্ষমতা নিয়ে খুঁটিনাটি তথ্য প্রকাশ করেনি যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী কিংবা নির্মাতা কোম্পানি।

তবে অন্যান্য সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে স্পেস ডটকম জানিয়েছে, পাইলটসহ এবং পাইলট ছাড়া ওড়ার সক্ষমতা আছে নতুন স্টিলথ বোমারু বিমানটির। প্রচলিত বোমা ছাড়াও পরমাণু অস্ত্র বহন করে হামলা চালানোর সক্ষমতা আছে এটির।

স্পেসডটকম জানিয়েছে, আকাশ থেকে গুপ্তচরের মতো নজরদারি চালানোর, রাডার জ্যাম করার ও প্রতিপক্ষের যোগাযোগে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির সক্ষমতাও এই বিমানের রয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে।

বি-২১ রেইডারের নকশা করা হয়েছে ‘ওপেন সিস্টেম আর্কিটেকচার’ প্রক্রিয়ায়। অর্থাৎ প্রযুক্তির অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে নতুন স্টিলথ বম্বারের অভ্যন্তরীণ প্রযুক্তি আপগ্রেড করার সুযোগ আছে। নরথ্রপ গ্রুমানের অ্যারোনটিক্স সিস্টেমস এর মহাব্যবস্থাপক ডাগ ইয়াং এক বিবৃতিতে বলেন, বিমানটি সর্বাধুনিক উদ্ভাবনী শক্তি ও প্রযুক্তিগত অগ্রগতির ফলাফল।

কোম্পানিটি আরও জানিয়েছে, তাদের পামডেলের কারখানায় নির্মাণ প্রক্রিয়ার বিভিন্ন পর্যায়ে আছে ছয়টি নতুন বি-২১ রেইডার। মার্কিন বিমান বাহিনী ২০২৩ সালেই বি-২১ রেইডারের প্রথম মিশন পরিচালনার কথা জানিয়ে রেখেছে। তবে তার লক্ষ্যবস্তু কী হবে, সে বিষয়ে কোনো আভাস দেয়নি।

Share This Article