এখন আর গড়পড়তা কাজ করতে চান না রিয়াজ

এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক রিয়াজ এখনো অভিনয়ে সক্রিয়। মাঝে মধ্যেই সিনেমায় অভিনয় করছেন। নাটকেও তাকে অভিনয়ে দেখা যায়। এ ছাড়া সাংগঠনিক কাজেও রয়েছে ব্যস্ততা। অভিনয় এবং প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* এখন কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

** আমার নিজস্ব বিজ্ঞাপনী সংস্থার কাজ নিয়েই বেশি ব্যস্ত আছি। প্রতিদিন এখানে সময় দিচ্ছি। আর মাঝে মধ্যে অভিনয় করছি।

* এখন তো আর করোনার দুঃসময় নেই। তারপরও অভিনয়ের গতি বৃদ্ধি করছেন না কেন?

** আমি অনেক বছর ধরেই একই গতিতে কাজ করছি। বলা যায়, একটি নির্দিষ্ট পরিকল্পনা ধরেই অগ্রসর হচ্ছি। তাই আমাকে কম দেখা যায় কাজে। তবে মানসম্মত কাজের প্রস্তাব পেলে সেগুলোতে কিন্তু অভিনয় করছি। অভিনয় জীবনের এ পর্যায়ে এসে আর গড়পড়তা কাজ করতে চাই না।

* ‘অপারেশন সুন্দরবন’ নামের একটি সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন। সেটি তো মুক্তির প্রক্রিয়ায় এসেছে। এ নিয়ে আশাবাদ কী আপনার?

** করোনাকালের অনেক আগে এ সিনেমায় অভিনয় করেছিলাম। সেটির মুক্তির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। বর্তমানে সিনেমাটির প্রচারণার প্রস্তুতি নিচ্ছি। আপাতত প্রচারণার কাজ বন্ধ থাকলেও শিগ্গির আমরা আবার কাজটি শুরু করব। এ সিনেমায় আমি একজন র‌্যাব অফিসারের চরিত্রে অভিনয় করেছি। সিনেমায় প্রথম এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় করেছি। গল্প এবং অন্যান্য কারণে সিনেমাটি দর্শকের পছন্দ হবে বলে মনে করছি।

* ‘রেডিও’ নামের একটি সিনেমায় অভিনয় শুরু করেছিলেন। সেটির খবর কী?

** অনন্য মামুনের পরিচালনায় নির্মিত এ সিনেমার কাজ শেষ হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের গল্প নিয়ে নির্মিত সিনেমাটি খুব সুন্দর লোকেশনে চিত্রায়িত হয়েছে। শুরুর দিকের শুটিং হয়েছে মানিকগঞ্জের নদী তীরবর্তী একটি জায়গায়। প্রকৃতির সুন্দর জায়গায়, তাই মানসিক প্রশান্তি নিয়েই কাজ করেছিলাম। এরই মধ্যে ডাবিংসহ অন্যান্য কাজও শেষ হয়েছে। সিনেমাটি নিয়ে আমি দারুণ আশাবাদী। এটি দর্শক পছন্দ করবেন বলে আমার বিশ্বাস।

* মাঝে মধ্যে নাটকেও অভিনয়ে দেখা যায় আপনাকে। এ মাধ্যমে নিয়মিত অভিনয় করেন না কেন?

** ভালো গল্পের নাটকের প্রস্তাব পেলে অভিনয় করি। যেমন গত ঈদে ‘বরফগলা গরম’ নামের একটি একখণ্ডের নাটকে অভিনয় করেছিলাম। যেটি ঈদ অনুষ্ঠানমালায় চ্যানেল আইতে প্রচার হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে শুধু মুখ দেখানোর জন্য অভিনয় করতে ইচ্ছা করে না।

* এভাবে যদি কাজ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন তাহলে তো নির্মাতারা আর আপনাকে নিয়ে ভাববেনই না?

** এ নিয়ে আমার আলাদা করে চিন্তা নেই। দীর্ঘ সময় ধরে একটু একটু করে নিজেকে অভিনয়শিল্পী হিসাবে তৈরি করেছি। আমার আজকের অবস্থানে আসার পেছনে দর্শকের অবদান রয়েছে অনেকখানি। তারা যেন আমার গড়পড়তা অভিনয় দেখে বিব্রত না হন, সেই চিন্তাই করি সব সময়।

* চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাংগঠনিক কাজ কেমন করছেন?

** বেশ ভালোই। শিল্পীদের কল্যাণে কাজ করার জন্যই সংগঠনটিতে যুক্ত হয়েছি। কাজের ব্যস্ততার পাশাপাশি বাকি সময় শিল্পী সমিতির কাজেই ব্যস্ত থাকি। আমি মনে করি, আগের চেয়ে শিল্পী সমিতি এখন বেশি সক্রিয়। আমরা মাঝে মধ্যেই শিল্পীদের জন্য নানা কর্মসূচি হাতে নিচ্ছি। সাধারণ শিল্পীরাও সংগঠনের এসব কর্মকাণ্ডে খুশি।