বাংলাদেশ থেকে যেসব খাতে ফের কর্মী নিবে মালয়েশিয়া

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:৫১, শনিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২১, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
  • বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগে একটি সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করতে সম্মত হয়েছে মালয়েশিয়া সরকার।
  • চলতি মাসেই এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির মন্ত্রীপরিষদ।
  • এর ফলে প্রায় তিন বছর পর বাংলাদেশ থেকে বৃক্ষরোপণ, কৃষি, নির্মাণ, সেবা, খনি ও গৃহকর্ম খাত থেকে কর্মী নিয়োগের পথ উন্মুক্ত হবে।
  • ১০ ডিসেম্বর মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক রেসি এম সারাভানান এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।

প্রায় তিন বছর বন্ধ থাকার পর অবশেষে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার বিদেশি কর্মীদের জন্য খুলছে। গতকাল শুক্রবার মালয়েশিয়ার মন্ত্রিসভা বাংলাদেশ থেকে কর্মী যাওয়ার বিষয়টি অনুমোদন করেছে। এ ছাড়া কভিড মহামারির কারণে বাংলাদেশসহ কয়েকটি দেশ থেকে কর্মীদের মালয়েশিয়ায় ফেরার ওপর নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেওয়া হয়েছে।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানান গতকাল এক বিবৃতিতে বলেছেন, বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় নিয়োগ দিতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করার বিষয়ে মন্ত্রিসভা সম্মত হয়েছে। অদূর ভবিষ্যতে এই এমওইউ স্বাক্ষর করার পরপরই মালয়েশিয়া বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেওয়া শুরু করবে।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী বলেন, আগে শুধু বনায়ন খাতে বিদেশি কর্মী নেওয়া হতো। এখন সব খাতই বিদেশি কর্মীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। বনায়ন, কৃষি, উৎপাদন, সেবা, খনিজ সম্পদ আহরণ, নির্মাণ খাতে ও গৃহকর্মী হিসেবে বিদেশি কর্মীদের নিয়োগ দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, কভিড বিস্তার ঠেকাতে বিদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশের বিষয়ে ‘স্ট্যান্ডার্ড অপারের্টি প্রসিডিউর (এসওপি)’ হালনাগাদ করা হবে। এ ক্ষেত্রে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলকে সহযোগিতা করবে। স্বাস্থ্য নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বিদেশিদের কোয়ারেন্টিনে রাখার বিষয়টিও থাকবে।

এর আগে গত সপ্তাহে ফেডারেশন অব মালয়েশিয়ান ম্যানুফ্যাকচারারস (এফএমএম) এক বিবৃতিতে জানায়, শিল্প খাতে আগামী বছর নাগাদ তাঁদের ছয় লাখের বেশি শ্রমিক লাগবে। রপ্তানিভিত্তিক কম্পানিগুলোতে এই শ্রমিকের প্রয়োজনীয়তা অনেক বেশি।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় বর্তমানে ১০ লাখেরও বেশি বাংলাদেশি কর্মী আছে। ২০১৮ সালে প্রায় পৌনে দুই লাখ কর্মী মালয়েশিয়ায় পাঠানো হয়েছিল। ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সি বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে দুই দেশের সরকারের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছিল। সে সময় অন্য রিক্রুটিং এজেন্সিগুলো এর প্রতিবাদ জানায়। ওই বছরই সেপ্টেম্বর মাসে মালয়েশিয়া সরকার বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেওয়া বন্ধ করে দেয়। এরপর থেকে শ্রমবাজার বন্ধ আছে।

জানা গেছে, মালয়েশিয়ার সঙ্গে যে সমঝোতা হচ্ছে তাতে রিক্রুটিং এজেন্সির সিন্ডিকেট থাকবে না। মালয়েশিয়া সরকার প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমেদকে দেশটি সফরে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। শিগগিরই মালয়েশিয়ার সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী মালয়েশিয়া সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান। তিনি আশা করেন, এ মাসেই সমঝোতা স্মারকটি সই হবে।

Share This Article


কাজাখস্তান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ড. মোমেনের বৈঠক: ভিসা চুক্তি স্বাক্ষরিত

যুক্তরাষ্ট্রে প্রধানমন্ত্রীকে নাগরিক সংবর্ধনা প্রদান

আজ মীনা দিবস

ঋণের পুরো টাকা ফেরত দিল শ্রীলঙ্কা

আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু-অংশগ্রহণমূলক হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ভিসা বিধিনিষেধে অন্তর্ভুক্ত ব্যক্তিদের নাম বা সংখ্যা প্রকাশ করবে না যুক্তরাষ্ট্র - ফাইল ছবি

ভিসা বিধিনিষেধে অন্তর্ভুক্ত ব্যক্তিদের নাম বা সংখ্যা প্রকাশ করবে না যুক্তরাষ্ট্র

যুদ্ধের পথ পরিহার করে শান্তি, সমৃদ্ধির জন্য কাজ করুন : জাতিসঙ্ঘে প্রধানমন্ত্রী

যারা নির্বাচন বানচাল করতে চায় জনগণ তাদের স্যাংশন দেবে: প্রধানমন্ত্রী

ভিসানীতি কার্যকরের অন্যতম উদ্দেশ্য হলো সহিংসতা কমানো: ডোনাল্ড লু

‘বিশ্বের ৩৫তম অর্থনৈতিক শক্তি বাংলাদেশ, ২০৩৭ সালে হবে ২০তম’

ভিয়েতনামের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান

স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান