রক্তক্ষরণ থামছে না খালেদা জিয়ার

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:০৪, শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অন্ত্রে আবারও রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অন্ত্রে আবারও রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

৮ ডিসেম্বর রাত থেকে এ রক্তক্ষরণ শুরু হয়। তাৎক্ষণিকভাবে চিকিৎসকরা ইনজেকশন দিয়ে তা বন্ধ করতে সক্ষম হন।

৯ ডিসেম্বর সকালে আবারও রক্তক্ষরণ হলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন খালেদা জিয়া। কিন্তু দুপুরের আগে তার সেই অবস্থার কিছুটা উন্নতি ঘটে বলে মেডিকেল বোর্ডের একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে কূটনীতিকদের অবহিত করবে বিএনপি। আজ শুক্রবার বিকেলে গুলশানে লেকশোর হোটেলে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে আমন্ত্রিত কূটনীতিকদের খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও অন্যান্য বিষয়ে অবহিত করা হবে।

একজন চিকিৎসক জানান, লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত খালেদা জিয়ার অবস্থার কোনো উন্নতি ঘটেনি। এখন বড় আকারে রক্তক্ষরণ হচ্ছে না। যা হচ্ছে তা অল্প পরিমাণে। তবে এই অবস্থা সাময়িক সময়ের জন্য। তাদের সবচেয়ে ভয়ের কারণ, বড় আকারের রক্তক্ষরণ হলে তা সামাল দেওয়ার মতো অবস্থা বা প্রযুক্তি এ দেশে নেই।

তিনি জানান, রক্তক্ষরণের কারণে খালেদা জিয়ার হিমোগ্লোবিনও ওঠানামা করছে। প্রধান ইলেকট্রোলাইট অর্থাৎ সোডিয়াম, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও ক্লোরিন উপাদানের পরিমাণ কমে যাওয়ায় দুর্বলতা বেড়ে যায়। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা চলছে। হার্ট, কিডনিসহ অনেক শারীরিক জটিলতা রয়েছে। কিডনির ক্রিয়েটিনিন অনেকটা বেশি। তাপমাত্রা স্বাভাবিক আছে। এগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখা কঠিন হয়ে পড়ছে। খালেদা জিয়ার শরীরে প্রচণ্ড দুর্বলতা রয়েছে।

চিকিৎসক জানান, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা উন্নতি-অবনতি দুটোই ঘটছে। এক দিন একটু স্থিতিশীল থাকলে পরের দিন জটিলতা বাড়ছে। তিনি বহুরোগে আক্রান্ত। তবে লিভার ও কিডনি রোগে এখন ভোগাচ্ছে বেশি। সঙ্গে হার্টের সমস্যা তো আছেই।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়া জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। তার চিকিৎসা দরকার। সেই চিকিৎসার উন্নত প্রযুক্তি এখানে নেই। তাকে অবিলম্বে বাইরে উন্নত চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠানো দরকার।

গত ১৩ নভেম্বর খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এভারকেয়ারের চিকিৎসক ডা. শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১০ জনের একটি বিশেষজ্ঞ মেডিকেল টিম তার চিকিৎসাসেবা দিচ্ছে।

Share This Article


ড. কামাল হোসেন রহস্যপুরুষ: কাদের

খেলা হবে আর আমাদের কর্মীরা ললিপপ খাবে তা হবে না: কাদের

রাজধানীতে প্রাইভেটকারে আগুন, দগ্ধ ২

বাংলাদেশের মানুষ ‘আমাদের মতই পাগল’, আর্জেন্টিনা দলের টুইট

যশোরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কাভার্ডভ্যান হোটেলে, নিহত ৫

পার্বত্য শান্তিচুক্তির ২৫তম বর্ষপূর্তি আজ

তিন মাসের মধ্যে নভেম্বরে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স

রেমিট্যান্স অর্জনে সপ্তম বাংলাদেশ: বিশ্ব ব্যাংক

আর্জেন্টিনাকেও ভয় পাচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া

ইউরোপকে পাশ কাটিয়ে দেশের গার্মেন্টস খাতের চমক

শেষ ষোলোর শেষ বেলায় ক্রোয়েশিয়া, মরক্কো, স্পেণ ও কোস্টারিকা

ফালুর বিরুদ্ধে অর্থ পাচার মামলার পুনঃ তদন্ত ২৩ ফেব্রুয়ারি