আবরার হত্যা মামলা : মৃত্যুদণ্ড হলো ২০ আসামির, ৫ জনের যাবজ্জীবন

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৪:৪৬, বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
সিসিটিভি ফুটেজে আহত আবরার ফাহাদ
সিসিটিভি ফুটেজে আহত আবরার ফাহাদ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার দুপুরে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান রায় ঘোষণা করেন।

এদিন সকাল সাড়ে ৯টায় ২২ আসামিকে কেরানীগঞ্জে অবস্থিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালতের হাজতখানায় নেওয়া হয়।

গত ২৮ নভেম্বর দুপুর ১২টার দিকে বিচারিক আদালত রায় ঘোষণার তারিখ পিছিয়ে ৮ ডিসেম্বর নির্ধারণ করেছিলেন।

এ মামলায় কারাগারে থাকা ২২ আসামি হলেন মেহেদী হাসান রাসেল, মো. অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মো. মেহেদী হাসান রবিন, মো. মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মো. মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মো. মনিরুজ্জামান মনির, মো. আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মো. মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও এস এম মাহমুদ সেতু। আর পলাতক তিন আসামি হলেন মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তফা রাফিদ।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর ভোরে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের সিঁড়ি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরারের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে জানা যায়, ‘শিবির সন্দেহে’ তাকে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী (পরে বহিষ্কৃত)।

এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ চকবাজার থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।

একই বছরের ১৩ নভেম্বর আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ২৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক ওয়াহেদুজ্জামান।

গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর ২৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরু হয়। এ মামলায় ৬০ জনের মধ্যে ৪৬ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

গত ১৪ মার্চ কারাগারে থাকা ২২ আসামি আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানিতে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। অপর তিন আসামি পলাতক থাকায় আত্মপক্ষ শুনানি করতে পারেননি। এরপর কয়েকজন আসামি নিজেদের পক্ষে সাফাই সাক্ষ্য দেন।

গত ৭ সেপ্টেম্বর মামলায় কিছু ত্রুটি থাকায় রাষ্ট্রপক্ষ পুনরায় অভিযোগ গঠনের আবেদন করে। ৮ সেপ্টেম্বর আদালত ২৫ আসামির বিরুদ্ধে পুনরায় অভিযোগ গঠন করে। এরপর ১৪ সেপ্টেম্বর আত্মপক্ষ শুনানিতে গ্রেপ্তার সব আসামি আবারও নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন।

মামলার আট আসামি ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততার বিষয়ে আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধি ১৬৪ ধারা মতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তারা হলেন ইফতি মোশাররফ সকাল, মো. মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মো. অনিক সরকার, মো. মুজাহিদুর রহমান, মো. মেহেদী হাসান রবিন, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মো. মনিরুজ্জামান মনির ও এ এস এম নাজমুস সাদাত।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article


দায়িত্ব নিলেন র‌্যাবের নতুন মহাপরিচালক

এমপি আজিম হত্যায় আরও ২ জনের নাম পেয়েছে ডিবি

ধর্ষণের অভিযোগ থেকে আইডিয়ালের মুশতাককে অব্যাহতির সুপারিশ

ড. ইউনূসের বিচার চলবে কি না, জানা যাবে ১২ ‍জুন

রিজেন্টের সাহেদসহ ৫ জনের বিচার শুরু

দেশে থাকা বিদেশি কর্মীর সংখ্যা জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট

তৃতীয় ধাপে প্রশ্নপত্র ফাঁস: প্রাথমিকে ৪৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হাইকোর্টে স্থগিত

বেনজীর আহমেদের কোম্পানি-ফ্ল্যাট জব্দের নির্দেশ

এমপি আনার হত্যা তদন্তে ভারত যাচ্ছে ডিবি

শ্রম আইন লঙ্ঘন মামলা: ড. ইউনূসের জামিনের মেয়াদ ৪ জুলাই পর্যন্ত বাড়ল

শিল্পী সমিতির সম্পাদক পদে ডিপজলের দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা

বাজারে থাকা এসএমসি প্লাসের সব ড্রিংকস প্রত্যাহারের নির্দেশ