১১২ কোটি অবৈধ টাকা বৈধ হলো ১২ কোটির ‘বিনিময়ে’

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সন্ধ্যা ০৭:৪০, রবিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসে (জুলাই থেকে নভেম্বর) অপ্রদর্শিত ১১২ কোটি টাকা (কালো টাকা) বৈধ বা সাদা করা হয়েছে। এই কালো টাকা ১৫০ ব্যক্তির। তারা কর হিসেবে ১২ কোটি টাকার কিছু বেশি সরকারের কোষাগারে জমা দিয়ে টাকাগুলো বৈধ বা সাদা করেছেন।

 

১১২ কোটি টাকার মধ্যে নগদ, ব্যাংক আমানত, সঞ্চয়পত্র ও অন্যান্য আর্থিক খাতে বিনিয়োগ দেখিয়ে ৯০ কোটি টাকা বৈধ করা হয়েছে। আর বাকি টাকা বৈধ করা হয়েছে আবাসন খাত ও শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ দেখিয়ে।

যদিও গত অর্থবছরের একই সময়ে ৫৫০ কোটি টাকা বৈধ করা হয়েছিল। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সংশ্লিষ্ট দপ্তর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্রের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে ১২২ জন তাদের কালো টাকা বৈধ বা সাদা করেছেন। তার পরের দুই মাসে করেছেন মাত্র ২৮ জন।

এদিকে আগের অর্থবছরে (২০২০-২১) রেকর্ড পরিমাণ প্রায় ২০ হাজার ৬০০ কোটি টাকা (কালো টাকা) বৈধ বা সাদা করা হয়। প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা সরকারকে কর দিয়ে প্রায় ১২ হাজার ব্যক্তি তাদের এই অবৈধ টাকাগুলো বৈধ করেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন- চিকিৎসক, সরকারি চাকরিজীবী, তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক, ব্যাংকের স্পন্সর-ডিরেক্টর, স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রমুখ।

Share This Article


হুন্ডির প্রভাব : অধিক জনশক্তি রপ্তানি করেও বাড়ছে না রেমিট্যান্স!

ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রার ৮৭.৭০ শতাংশ অর্জন : অর্থমন্ত্রী

হুন্ডিতে টাকা পাঠিয়ে দেশ ও নিজের ক্ষতি করছেন যেভাবে

হুন্ডির মাধ্যমে টাকা পাঠালে যা হয়

বাংলাদেশ কখ‌নও দেউ‌লিয়া হ‌বে না: অর্থমন্ত্রী

নয় দিনে এ‌ল ৭ হাজার কোটি টাকার রেমিট্যান্স

ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে বেড়েছে রিজার্ভ

চালু হচ্ছে আরেকটি নৌপথ, খুলছে সম্ভাবনার দুয়ার

তেল ও চিনির নতুন দাম নির্ধারণ করবে সরকার

রপ্তানি আয় কিছুটা কমার কারণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী

লোহিত সাগর সংকটের যে প্রভাব পড়ছে বাংলাদেশের বাণিজ্যে

অর্থনৈতিক সংকটে পাশে থাকবে সৌদি!