হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে খালেদা জিয়াকে

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ০৯:৫২, রবিবার, ৩১ মার্চ, ২০২৪, ১৭ চৈত্র ১৪৩০

খালেদা জিয়ার শারীরিক কন্ডিশন দেখে  ভর্তি করতে বলেন চিকিৎসকেরা। তাকে হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হবে। এখন তিনি করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) আছেন।  

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ নিয়ে এক মাসে দ্বিতীয়বারের মতো হাসপাতালে ভর্তি হতে হলো সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে।

রবিবার (৩১ মার্চ) সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ভর্তির বিষয়টি জানান খালেদা জিয়ার মেডিক্যাল টিমের অন্যতম চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন।

তিনি বলেন, ম্যাডামের শারীরিক কন্ডিশন দেখে চিকিৎসকেরা তাকে ভর্তি করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাকে হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হবে। এখন তিনি করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) আছেন। 

কবে ফিরতে পারেন বাসায়, এমন প্রশ্নের জবাবে ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, এটা মেডিক্যাল বোর্ড সিদ্ধান্ত নেবে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়েছে। চিকিৎসাও চলছে। 

এর আগে, স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ায় রবিবার (৩১ মার্চ) মধ্যরাতে খালেদা জিয়াকে এভার কেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়। 

খালেদা জিয়ার মেডিক্যাল কোরের একটি সূত্র জানায়, তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পুরো মেডিক্যাল টিম আছেন এভার কেয়ারে। সূত্র জানায়, তার শারীরিক অবস্থা অনেক বেশি আশঙ্কাজনক নয়। তবে, স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটায় দ্রুত হাসপাতালে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকেরা।

এর আগে চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে হাসপাতালে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, খালেদা জিয়াকে এভার কেয়ারে নেওয়া হয়েছে। গত ২৭ মার্চ রাতেও তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। সেদিনও হাসপাতালে নেওয়ার কথা আলোচনা হলেও পরে নেওয়া হয়নি। পরদিন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেছিলেন, বিপজ্জনক অবস্থান থেকে বেগম খালেদা জিয়াকে ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছেন চিকিৎসকেরা।

মেডিক্যাল বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ১৩ মার্চ এভার কেয়ারে ভর্তি হন তিনি। শারীরিক কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ১৪ মার্চ গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় ফেরেন খালেদা জিয়া।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকে তার অসুস্থতা বাড়া-কমার মধ্যে রয়েছে। করোনা মহামারির সময় ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পেয়ে বাসায় ফেরেন তিনি। এরপর বেশ কয়েকবার হাসপাতালে যান। সবশেষ গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে।

গত বছরের ২৬ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স হাসপাতালের তিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বাংলাদেশে আসেন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য। তাদের চিকিৎসা শুরুর পরই খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হতে শুরু করে। সে যাত্রায় হাসপাতালে ১৫৬ দিন থেকে গত ১১ জানুয়ারি সন্ধ্যায় বাসায় ফেরেন খালেদা জিয়া। এরপর থেকে কিছু দিন বিরতি দিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এভার কেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে তাকে।

সবশেষ গত ফেব্রুয়ারির শুরুতেও শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য হাসপাতালেও নেওয়া হয়েছিল তাকে।

Share This Article


ইসরাইলে সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে পরবর্তী হামলা করা হবে: ইরান

বিএনপি পথহারা পথিক: ওবায়দুল কাদের

সম্মানী বাড়ছে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের

নাফ নদ দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকল মিয়ানমারের ১৩ বিজিপি সদস্য

কৃষক লীগ নেতাদের গণভবনের শাক-সবজি উপহার দিলেন শেখ হাসিনা

সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়, ঘরে-বাইরে কোথাও স্বস্তি নেই

খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার

ইরানে ইসরায়েলি হামলার খবরে বাড়ল তেলের দাম

তেহেরানে বিমান চলাচল বন্ধ

দাবদাহে বাড়ছে ডায়রিয়ার প্রকোপ, হাসপাতালে রোগীর চাপ

জাতীয় পতাকার নকশাকার শিব নারায়ণ দাসের মৃত্যু

কৃষির উন্নয়নে সমবায় পদ্ধতি চালু করা উচিত : প্রধানমন্ত্রী