ফিলিস্তিনি বন্দিদের ন্যূনতম চিকিৎসাও করেনি ইসরায়েল

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৪:০৭, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪৩০

চতুর্থ ধাপে আরও ৩৩ ফিলিস্তিনিকে মুক্তি দিয়েছে ইসরায়েল। তবে এসব জিম্মিদের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করেছে ইসরায়েল। এমনকি ন্যূনতম চিকিৎসাও দেয়নি তারা। অন্যদিকে ফিলিস্তিনিদের আচরণে মুগ্ধ হয়েছে থাই নাগরিকরা। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

জেনিনের বাসিন্দা মোহাম্মাদ নাজেল নামের এক তরুণ ইসরায়েলের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মুক্তি পাওয়ার সময় তার হাত একটি হাত কাপড়ে ঝোলানো ছিল। তিনি মুক্তি পেয়ে আলজাজিরার সঙ্গে আলাপকালে ইসরায়েলের নির্মমতার কথা বর্ণনা দিয়েছেন।

নাজাল বলেন, সপ্তাহখানেক আগে ইসরায়েলের গার্ডরা পিটিয়ে তার হাত ও আঙুল ভেঙে দিয়েছে। তার অভিযোগ, কারাগারে তাকে ন্যূনতম চিকিৎসাও দেয়নি। কেবল ফিলিস্তিনে হস্তান্তর করার সময় রেড ক্রসের সদস্যরা তার ভাঙা হাত একটি কাপড়ে ঝোলানো অবস্থায় পাঠিয়েছেন।

তিনি বলেন, তারা আমাকে কিছুই দেয়নি। ইসরায়েলিরা আমার হাত ভেঙে দিয়েছে। আমি আঙুল নাড়াতেও পারছি না।

নাজাল বলেন, কারাগারে বন্দিদের অবস্থা শোচনীয়। নেগেভ মরুভূমির যে কারাগারে তিনি ছিলেন সেটি নির্মমতার জন্য কুখ্যাত ছিল। সেখানকার পরিস্থিতি তুলে ধরে তিনি বলেন, সেখানে বৃদ্ধদের মেঝেতে ফেলে রাখা হয়েছে। আমি তরুণ বলে আমি মানিয়ে নিতে পারছি। কিন্তু বৃদ্ধদের কি অবস্থা!

নাজাল যখন অবস্থার বর্ণনা দিচ্ছিলেন তখন তার পাশে তার মা ছিলেন। তিনি বলেন, আমাদের কোনো ধারণা নেই যে তার সঙ্গে কি ঘটেছে। সেখানে কথা বলার কোনো সুযোগ নেই। দেখাও করা যায় না। কোনো ধরনের কিছুই নেই।

এদিকে গত শুক্রবার থেকে হামাস-ইসরায়েলের মধ্যে চার দিনের যুদ্ধবিরতি চুক্তি কার্যকর হয়েছিল। পরে সোমবার এটির মেয়াদ আরও দুদিন বাড়ানোর কথা জানায় কাতার।

কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, গাজা উপত্যকায় আরও দুদিনের জন্য যুদ্ধবিরতি বাড়ানো হয়েছে। একই শর্ত অনুসারে অস্থায়ী মানবিক এ যুদ্ধবিরতি বাড়ানো হয়েছে। ইসরায়েল এবং হামাসের সঙ্গে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করেছে কাতার এবং মিসর।

হামাস-ইসরায়েলের চার দিনের যুদ্ধবিরতির শেষ দিন ছিল আজ। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোরে শেষ হওয়ার কথা ছিল যুদ্ধবিরতির মেয়াদ। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার আগেই নতুন করে যুদ্ধবিরতির সময় আরও ২ দিন বাড়ানো হলো।

এর আগে, ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু রোববার জানিয়েছিলেন, উপত্যকায় যুদ্ধবিরতির মেয়াদ বাড়াতে তার প্রশাসনের কোনো আপত্তি নেই। তবে, এ জন্য শর্ত বেঁধে দিয়েছেন তিনি। তিনি জানান, একদিন মেয়াদ বাড়াতে ১০ ইসরায়েলি জিম্মিকে মুক্তি দিতে হবে।

Share This Article


মিয়ানমারে বাধ্যতামূলক সেনা নিয়োগের ঘোষণায় পালাচ্ছেন যুবকরা

‘কে আমাকে বাবা বলে ডাকবে?’

হাঙ্গেরির অনুমোদন, ন্যাটোতে যোগদানে আর বাধা নেই সুইডেনের!

ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের ২ বছর আজ

ইসরায়েলে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে তুমুল বিক্ষোভ

আবারও হুতিদের উপর বিমান হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য

নিজ ঘরে হার নিকির, এগিয়ে গেলেন ট্রাম্প

মেয়রকে ইসলামপন্থী বলে বরখাস্ত হলেন ব্রিটিশ এমপি

রোজা উপলক্ষ্যে ১০ হাজার পণ্যের দাম কমেছে আরব আমিরাতে

দুধের অভাবে গাজায় দুই মাসের ফিলিস্তিনি শিশুর মৃত্যু

অস্ট্রেলিয়ায় দাবানলে পুড়ছে বাড়িঘর

ঘোড়া জবাই করে শিশুদের খাদ্য জোগাচ্ছে ফিলিস্তিনিরা