হঠাৎ নমনীয় যুক্তরাষ্ট্র-চীন

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:৫১, সোমবার, ৫ জুন, ২০২৩, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০

‘আমরা বেশি করে আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে পারি। তা না হলে আমাদের সংকট বা সংঘাতের দিকে নিয়ে যেতে পারে।’

এশিয়ায় আধিপত্য বিস্তার ঘিরে চলমান উত্তেজনা সংঘাতে রূপ দিতে চায় না চীন ও যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে বিপর্যস্ত বিশ্বকে আরেক দফা বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে না দিয়ে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দেশই আগ্রহী।

সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত এশিয়ার শীর্ষ নিরাপত্তা সম্মেলনে দুই দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের বক্তব্যে এসব বিষয় উঠে এসেছে। খবর আলজাজিরার।

সম্মেলনে গতকাল রোববার চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লি শাংফু বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সংলাপ চায় বেইজিং। একই সঙ্গে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এই দুই দেশের মধ্যে কোনো ধরনের সংঘাত বিশ্বের জন্য অসহনীয় বিপর্যয় ডেকে আনবে। এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ‘ন্যাটোর মতো’ সামরিক জোট গঠন করা হলে ‘বিরোধ ও সংঘাতের আবর্তে’ নিমজ্জিত হবে অঞ্চলটি। শাংফু আরও বলেন, একটি  শীতল যুদ্ধের মানসিকতা এখন আবারও সামনে আসছে। এ পরিস্থিতিতে হুংকার ও আধিপত্য নয়, পারস্পরিক শ্রদ্ধাকেই প্রাধান্য দেওয়া উচিত।

এর আগে গত শনিবার একইভাবে সংলাপের প্রস্তাব দেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। সংকট সমাধানে চীনের অনাগ্রহ নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। তবে দু’পক্ষের মধ্যে আলোচনাই সংকট সমাধানের একমাত্র উপায় বলে উল্লেখ করেন অস্টিন।

তাইওয়ান ও দক্ষিণ চীন সাগরে আঞ্চলিক বিরোধ আর সেমিকন্ডাক্টর চিপ রপ্তানিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নিষেধাজ্ঞাসহ নানা কারণে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে সম্পর্ক বর্তমানে তলানিতে ঠেকেছে।

সম্মেলনে অস্টিন বলেন, স্বশাসিত তাইওয়ানের স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে ওয়াশিংটন ‘প্রতিশ্রুতিবদ্ধ’। তিনি চীনকে উদ্দেশ করে বৈঠকে বলেন, ‘আমরা বেশি করে আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে পারি। তা না হলে আমাদের সংকট বা সংঘাতের দিকে নিয়ে যেতে পারে।’ অঞ্চলটি নিজেদের বলে দাবি করে আসছে বেইজিং।

সংলাপের আহ্বান জানালেও যুক্তরাষ্ট্র পিছু হটবে না বলেও স্পষ্ট করেন অস্টিন। তিনি বলেন, চীনের ‘জবরদস্তির মুখে নড়বে না’ ওয়াশিংটন। এই অঞ্চলে বেইজিংয়ের ব্যাপক ভূখণ্ড দাবির মোকাবিলা করে তাইওয়ান প্রণালি এবং দক্ষিণ চীন সাগরের আন্তর্জাতিক জলসীমায় নিয়মিত নৌযান এবং বিমান পরিচালনা করা হবে।  

বৈঠকে চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য বেশ সংযত থাকলেও তাইওয়ানকে প্রতিরক্ষা সহায়তা, প্রশিক্ষণ এবং শীর্ষ কূটনীতিকের সফরের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যদের বিরুদ্ধে ‘চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ’ করার অভিযোগ করেন তিনি।

শাংফু বলেন, চীন শান্তিপূর্ণ উন্নয়নের পথে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তবে আমরা আমাদের বৈধ অধিকার এবং দেশের স্বার্থ রক্ষায় কখনোই দ্বিধা করব না। তবে কোয়াডসহ নানা জোটের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের তৎপতরায় বেইজিং ক্রমেই ‘কোণঠাসা’ অনুভব করছে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

এদিকে, এই সম্মেলনে অংশ নিয়ে গত শুক্রবার বিশ্বের অন্তত ২৪টি শীর্ষস্থানীয় গোয়েন্দা সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা গোপন বৈঠক করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারত। ইউক্রেনের কর্মকর্তা উপস্থিত থাকলেও সেখানে ছিলেন না কোনো রুশ কর্মকর্তা।

গোয়েন্দাদের বৈঠকে ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধ এবং বৈশ্বিক অপরাধের কথা উঠে আসে। তবে সেখানে দ্বন্দ্ব-সংঘাত নয়, সহযোগিতামূলক বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে রয়টার্সকে জানিয়েছে একটি সূত্র। গতকাল শেষ হওয়া তিন দিনব্যাপী এ সম্মলেনে ৪৯টি দেশের ছয় শতাধিক প্রতিনিধি অংশ নেন।

Share This Article


খরায় শুকিয়ে গেল হ্রদ, বিপুল মাছের মৃত্যু

সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বৈঠক করলেন জেলেনস্কি

কুয়েতে অগ্নিকাণ্ডে মৃত ৪০ ভারতীয়র মধ্যে ২৪ জনই কেরালার

ভেঙে ফেলা হবে ইউরোপের একমাত্র জগন্নাথ মন্দির

ইসলামের প্রকৃত চিত্র ছড়িয়ে দিতে ৫০ ভাষায় অনুবাদ হবে হজের খুতবা

‘কান্নার জন্য প্রস্তুত হও ইসরায়েল’

ইউক্রেনে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, শিশুসহ নিহত ৯

আরো ৭০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে জনসন

কঙ্গোতে নৌকা ডুবে ৮০ জনের বেশি মৃত্যু

জম্মু-কাশ্মিরে সংঘর্ষে নিহত ১২, পাকিস্তানকে দুষছে ভারত

কুয়েতে আগুনে নিহতদের ৪০ জনই ভারতীয়, মোদির শোকপ্রকাশ

কমান্ডার হত্যার জবাবে ইসরায়েলে রকেট হামলা হিজবুল্লাহর