বিকাল ০৩:২৮, মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট, ২০২২, ১ ভাদ্র

যেসব খাবার কিডনি রোগীর জন্য উপকারি

অনলাইন ডেস্ক:
দিন দিন কিডনি রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।  মানুষের জীবন যাপনে পরিবর্তন, খাদ্যে ভেজাল ও নানাবিধ কারণে এই সমস্যা হচ্ছে।  অনেকের অল্প বয়সেই কিডনি বিকল হয়ে যাচ্ছে। কিডনি সমস্যা দেখা দিলে জীবন যাপনে বদল আনতে হবে।  খাবার খেতে হবে হিসাব করে।  রক্তে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা বৃদ্ধিকে ধীর গতিতে রাখার জন্য সঠিক খাবার খাওয়া জরুরি।  

সঠিক পথ্য মেনে চললে রক্তে ক্রিয়েটিনের মাত্রাকে অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।  রোগী ভেদে কিডনির পথ্য নির্ধারণে ভিন্নতা থাকে।  রক্তে ইলেকট্রোলাইটসের পরিমাণ, হিমোগ্লোবিনের মাত্রা, ইউরিয়া ও ইউরিক এসিডের পরিমাণ, রক্ত ও ইউরিনে এলবুমিনের পরিমাণ এবং ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা ভেদে পথ্যকে সাজাতে হয়।  
এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন বিআরবি হাসপাতালের পুষ্টিবিদ ইসরাত জাহান।  

সবজি

রক্তে পটাশিয়াম, ইউরিক এসিডের মাত্রা, ফসফরাস ইত্যাদির ওপর ভিত্তি করে সবজি হিসাব করা হয়।  কিডনি সমস্যা দেখা দিলে অতিরিক্ত পিউরিন ও পটাশিয়াম সমৃদ্ধ শাকসবজি, পিচ্ছিল ও গাঢ় লাল রঙের শাকসবজি এড়িয়ে যেতে হবে। কিডনি রোগীদের জন্য চালকুমড়া, চিচিঙ্গা, ঝিংগা ইত্যাদি পানীয় সবজি উপকারী। উপকারী হলেও এগুলোর পরিমাণ মেনে চলাও গুরুত্বপূর্ণ। কাঁচা সবজির সালাদ, সবজি স্যুপ ইত্যাদি কিডনি রোগীদের এড়িয়ে চলতে হয়।

ফল

অনেকেই কিডনি রোগ হলে ফল খাওয়া বন্ধ করে দেন।  যা স্বাস্থ্যসম্মত নয়। এ ক্ষেত্রে রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা বিবেচনা করে ফল নির্ধারণ করতে হবে। তবে কিডনি রোগীদের ফল খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক হতে হয়। অক্সালিক এসিড, ইউরিক এসিড, পটাশিয়াম, রক্তচাপ ছাড়াও আরও অনেক কিছু বিবেচনা করে ফল নির্ধারণ করা হয়।  তিন চারটি ফল রোগী ভেদে সীমিত আকারে দেওয়া হয়।  যেমন : আপেল, পাকা পেঁপে, পেয়ারা ইত্যাদি।  

লবণ

লবণ বা সোডিয়াম নিয়ন্ত্রিত পথ্য কিডনি রোগীদের ক্ষেত্রে জরুরি।  রক্তচাপ, রক্তে সোডিয়ামের মাত্রা, ইডিমা বা শরীরের পানি পরিমাপের ওপর ভিত্তি করে লবণের পরিমাপ করা হয়। সাধারণত দুই থেকে পাঁচ গ্রাম লবণ নির্ধারণ করা হয় যা নির্ভর করবে আপনার শারীরিক অবস্থা ও ডায়েটেশিয়ানের ওপর। আলাদা লবণ গ্রহণ পরিহার করতে হবে এবং অতিরিক্ত সোডিয়ামযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলতে হবে।  যেমন : চিপস, পাপড়, চানাচুর, আচার ইত্যাদি। যা শুধু কিডনি রোগীর চিকিৎসায় নয়, কিডনি রোগ প্রতিরোধেও সাহায্য করে।

তরল বা পানীয়

কিডনি রোগীদের ক্ষেত্রে তরল খাবার নিয়ন্ত্রণ জরুরি।  চা, দুধ, পানি সব মিলিয়ে তরলের হিসাব করা হয়।  কোন রোগীকে কতটুকু তরল বরাদ্দ করা হবে তা নির্ভর করবে রোগীর অবস্থার ওপর।  খুব গাঢ় করে জাল দিয়ে দুধ পান করা যাবে না। শরীরের ইডিমা, হিমোগ্লোবিনের মাত্রা, সোডিয়ামের মাত্রা, ইজিএসআর- এসবের মাত্রার ওপর ভিত্তি করে এক থেকে দেড় লিটার, কখনও কখনও দুই লিটার পর্যন্ত তরল বরাদ্দ হয়। অনেকেই্ অসুস্থ কিডনিকে সুস্থ করার জন্য অতিরিক্ত পানি খায়, এটি ভুল।

দীর্ঘ মেয়াদি ক্রনিক কিডনি রোগী এ ধরনের খাবারের পরামর্শ মেনে চললে কিডনিকে মারাত্মক জটিলতার হাত থেকে রক্ষা করা সম্ভব হয়। একঘেয়েমি হলেও ধৈর্যের সঙ্গে সঠিক পথ্য ব্যবস্থাপনা মেনে চলা প্রত্যেক কিডনি রোগীর জন্য জরুরি।

কিডনি রোগীরা যেদিকে দৃষ্টি দেবেন

চিচিঙ্গা, লাউ, করলা, বিচি ছাড়া শশা, সজনা, ডাঁটাশাক, লালশাক, কচুশাক, ঝিংগা, পেঁপে, হেলেঞ্চা শাক ইত্যাদি শাক-সবজি খাবেন।

যেসব সবজি খাবেন না

ফুলকপি, বাঁধাকপি, পালংশাক, কচু, মুলা, পুঁইশাক, ঢেঁড়স, গাজর, কাঁঠালের বিচি, শিমের বিচি, মুলাশাক ইত্যাদি।

প্রাণিজ আমিষ, যেমন- মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ইত্যাদি সীমিত পরিমাণে খাবেন।

ডাব, কলা, আঙুর একেবারেই খাবেন না, কেননা, এতে পটাশিয়ামের পরিমাণ বেশি। কিডনি রোগীদের রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা বাড়তে থাকে।

কম পটাশিয়ামযুক্ত ফল যেমন- আপেল, পেয়ারা, পাকা পেঁপে, নাসপাতি ইত্যাদি।

রোগীর খাদ্যতালিকায় প্রোটিন রাখতে হবে রোগের মাত্রার ওপর ভিত্তি করে। যেমন- রোগীর রক্তের ক্রিয়েটিনিন, শরীরের ওজন, ডায়ালাইসিস করেন কিনা, করলেও সপ্তাহে কয়টা করেন তার ওপর নির্ভর করে প্রোটিনের মাত্রা নির্ধারণ করতে হবে।

যেমন- কিডনি রোগ শনাক্ত হওয়ার পর প্রতিকেজি দৈহিক ওজনের জন্য প্রোটিনের প্রয়োজন ০.৫-০.৮ গ্রাম। গুরুতর রোগীর জন্য ০.৫ গ্রাম।

এসব নির্দেশনা অনুযায়ী খাদ্যতালিকা তৈরি করে খাবার খেলে কিডনি রোগ অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

Share This Article

বরগুনায় বাড়াবাড়ি হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ক্রেন দুর্ঘটনায় দায়ীদের খুঁজে বের করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

রাশিয়া থেকে ভারত তেল কিনতে পারলে আমরা কেন পারবো না : প্রধানমন্ত্রী

প্রাইভেটকারে গার্ডার: নিহতদের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অব্যাহত রাখার বিষয়ে একমত বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

পাকিস্তানের মুলতানে বাস-ট্যাংকার সংঘর্ষে নিহত ২০, আহত ৬

‘হৃদয় ও রিয়া মানসিক ট্রমার মধ্যে আছেন’

তুরস্কের সামরিক বাহিনীর প্রথম নারী জেনারেল ওজলেম ইলমাজ

করোনায় বাল্যবিয়ের শিকার ৪৭ হাজার, শিশুশ্রমে ৭৭ হাজার শিক্ষার্থী

বিআরটি প্রকল্পের কাজ আপাতত বন্ধ: মেয়র আতিক


সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অব্যাহত রাখার বিষয়ে একমত বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

পাকিস্তানের মুলতানে বাস-ট্যাংকার সংঘর্ষে নিহত ২০, আহত ৬

‘হৃদয় ও রিয়া মানসিক ট্রমার মধ্যে আছেন’

তুরস্কের সামরিক বাহিনীর প্রথম নারী জেনারেল ওজলেম ইলমাজ

করোনায় বাল্যবিয়ের শিকার ৪৭ হাজার, শিশুশ্রমে ৭৭ হাজার শিক্ষার্থী

বিআরটি প্রকল্পের কাজ আপাতত বন্ধ: মেয়র আতিক

এবার লঞ্চভাড়া বাড়ল ৩০ শতাংশ

গিটার জাদুকরের জন্মদিন আজ

পোল্যান্ড ও জার্মানির শতাধিক যোদ্ধাকে হত্যার দাবি রাশিয়ার

প্রেমিক যুগল ভেবে ভাই-বোনকে আটকে নির্যাতন, ছাড়াতে এসে বাবাও শিকার

সিনেমাটি ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হবে: সারা

২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে মৃত্যু এক হাজারের বেশি, আক্রান্ত সাড়ে চার লাখ

বনানীতে ট্রাকচাপায় প্রাণ হারালো বাইকবিডির জামিল

ভারতকে নিষিদ্ধ করলো ফিফা

জন্ম নিবন্ধনে মা-বাবার জন্ম সনদ আর লাগছে না