সন্ধ্যা ০৭:৪৪, রবিবার, ২৬ জুন, ২০২২, ১২ আষাঢ়

দ্রুত উজ্জ্বলতা হারাচ্ছে পৃথিবী

প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

খুব দ্রুত উজ্জ্বলতা হারাচ্ছে পৃথিবী। আর সেটাই আরো বেশি অভিশাপ হয়ে উঠছে। পৃথিবীর ‘জ্বর’ আরো বেড়ে যাচ্ছে। উষ্ণতর হয়ে উঠছে। গ্রিনহাউস গ্যাসের নির্গমন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ার দরুন জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য। সাম্প্রতিক একটি গবেষণা এই খবর দিয়েছে।

গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান গবেষণা পত্রিকা ‘জিওফিজিক্যাল রিসার্চ লেটার্স’-এ। গবেষণাপত্রটি জানিয়েছে, ১৯৯৮ থেকে ২৯১৭, এই ২০ বছরে পৃথিবীর উজ্জ্বলতা প্রতি বর্গ মিটারে আগের বছরগুলোর চেয়ে অর্ধেক ওয়াট করে কমে গিয়েছে। শতাংশের হিসাবে আগের বছরগুলোর চেয়ে পৃথিবীর উজ্জ্বলতা কমেছে ০.৫ শতাংশ। যার অর্থ, সূর্যালোক আগের চেয়ে নীলাভ এই গ্রহ কম পরিমাণে প্রতিফলিত করছে।

কেন এমন হচ্ছে, তার কারণও খুঁজে বার করেছেন গবেষকরা। তারা দেখেছেন, এই ২০ বছরে পৃথিবীর মহাসাগরগুলোর তাপমাত্রা আগের চেয়ে অনেকটাই বেড়েছে। তার ফলে, সেই মহাসাগরগুলোর উপরের মেঘ আগের চেয়ে অনুজ্জ্বল হয়ে পড়েছে। মেঘের উজ্জ্বলতা হারানোর জন্যই পৃথিবী সূর্যালোক আগের চেয়ে কম পরিমাণে প্রতিফলিত করছে মহাকাশে। তাই সেই সূর্যালোক পৃথিবীর তাপমাত্রা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। পৃথিবী কতটা সূর্যালোক প্রতিফলিত করছে, তা বুঝতে গবেষকরা খতিয়ে দেখেছেন পৃথিবী তার উপগ্রহ চাঁদকে কী পরিমাণে আলোকিত করছে।

সাধারণত, সূর্যালোকের ৩০ শতাংশ পৃথিবী প্রতিফলিত করে ফিরিয়ে দেয় মহাকাশে। গবেষণাপত্রটি জানিয়েছে, এই পরিমাণ ১৯৯৮ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে ০.৫ শতাংশ কমে গিয়েছে। আর সেটা কমেছে মূলত ২০১৫, ২০১৬ এবং ২০১৭ সালে। মূল গবেষক নিউ জার্সি ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির অধ্যাপক তাত্ত্বিক পদার্থবিদ ফিলিপ গুডে বলেছেন, ‘প্রতিফলনের পরিমাণ কমে যাওয়ার তিন বছরের খতিয়ান দেখে আমরা অবাক হয়ে গিয়েছি। এত দিন বিজ্ঞানীদের ধারণা ছিল, উষ্ণায়নের জন্য পৃথিবী হয়তো আরো বেশি পরিমাণে সূর্যালোক প্রতিফলিত করছে মহাকাশে। কিন্তু আমাদের গবেষণার ফলাফল উল্টো কথাই বলেছে।’

গবেষকরা যে উপগ্রহ চিত্র ও তথ্যাদি বিশ্লেষণ করেছেন তাতে দেখা গিয়েছে, পূর্ব প্রশান্ত মহাসাগরের উপরে একেবারে নীচের স্তরে থাকা মেঘ উজ্জ্বলতা হারিয়েছে বেশি পরিমাণে। ফলে সেই মেঘ থেকে সূর্যালোকের প্রতিফলনও আগের চেয়ে কমে গিয়েছে। এই অঞ্চলটিই পৃথিবীর উজ্জ্বলতা কমার মূল কারণ হয়ে উঠেছে। এও দেখা গিয়েছে প্রশান্ত মহাসাগরের উপরের যে সব এলাকায় উজ্জ্বল মেঘের স্তর আগের চেয়ে পাতলা হয়ে গিয়েছে, সেই সব জায়গায় মহাসাগরের তাপমাত্রাও আগের চেয়ে অনেক বেড়ে গিয়েছে। এমন হয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য।

শুধুই তো মেঘ নয়, জল, বরফ, বনাঞ্চল, মরুভূমি সব কিছুই সূর্যালোক প্রতিফলিত করে পাঠায় মহাকাশে। কারো ক্ষেত্রে তার পরিমাণ কম, কারো ক্ষেত্রে বেশি। গবেষকরা দেখেছেন, পৃথিবীর উজ্জ্বলতা কমে যাওয়ার পিছনে রয়েছে সভ্যতার সৃষ্টি করা দূষণও। সূত্র: সাই টেক ডেইলি।

Share This Article


দাম কমল সয়াবিন তেলের

‘ঢাকার চারপাশে সেতুগুলো ভেঙ্গে নৌ চলাচলের উপযোগী করে নির্মাণ করা হবে’

দক্ষিণ আফ্রিকার নাইট ক্লাব থেকে ২০ জনের মরদেহ উদ্ধার

পদ্মা সেতুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে বিএনপি যুক্ত, তা প্রমাণিত: তথ্যমন্ত্রী

তারেক ও জোবায়দার মামলা চলবে: হাইকোর্ট

গর্ভপাত আইন সংস্কার করতে চলেছে জার্মানি

বলিউডে শাহরুখের ৩০ বছর, গৌরীর ‘সুন্দর নোট’

পদ্মাসেতুতে খালেদা জিয়ার অবদান কতটুকু?

ঘরভর্তি টাকা আর টাকা, ইনস্পেক্টরের ঘুষের টাকা গুনতে নাজেহাল কর্মকর্তারা |

ফাইল ফটো

ঘরে বসে যেভাবে করবেন ‘জিডি’

দক্ষিণ আফ্রিকায় নাইটক্লাব থেকে ১৭ মরদেহ উদ্ধার

মিয়া খলিফাকে বিয়ের প্রস্তাব

পাঁচতলা থেকে নারী ব্লগারকে ছুড়ে ফেলল স্বামী!

ফাইল ফটো

পাবনায় শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি পিন্টু গ্রেপ্তার

ফাইল ফটো

দাম কমবে ভোজ্য তেলের!