বিকাল ০৩:১৭, মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট, ২০২২, ১ ভাদ্র

যেভাবে বদলে গেছে পাহাড়ি জনপদ

পাহাড়ি জনপদ
পাহাড়ি জনপদ

মোহাম্মাদ এনামুল হক এনা:   দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মতো উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে পার্বত্য চট্রগ্রামের দুর্গম পাহাড়ি জনপদেও। সরকার পাহাড়ি অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত ও সহজ করে দেয়ায় বদলে যাচ্ছে গোটা পাহাড়ি জনপদ।

 

বিদ্যুৎ সুবিধা, স্বাস্থ্য সেবা ও শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন করাসহ সরকারের নানামুখী উদ্যোগে প্রসার ঘটেছে কৃষি ও বাণিজ্যে। এখন পাহাড়ি জনপদের দৃশ্য গত কয়েক দশক আগের পর্যটনের চিত্রের সাথে মিল খুজে পাওয়া মুশকিল। কারণ বদলে গেছে পাহাড়ি জনপদ।

উন্নত সড়কের কারণে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় গড়ে ওঠেছে হাতিমুড়া পর্যটন কেন্দ্র। খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটির সীমান্তের ‘শিলাছড়ি ঝরনা’ সহজেই দেখতে পারছেন পর্যটকরা। এছাড়াও খাড়াছড়ির আলুটিলা পর্যটন কেন্দ্রে বছরজুড়েই থাকে পর্যটকদের আনাগোনা।

চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি পাহাড়ি সড়ক এখন মসৃণ ও পিচঢালা হওয়ায় সহজেই পৌঁছানো যাচ্ছে পর্যটনের বিভিন্ন গন্তব্যে। কৃষকদের নানান সুবিধা দেয়ায় পাহাড়ের চূড়ায় জুম, ড্রাগনসহ নানান ধরনের ফসলাদি বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে।  

পুরো পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে স্থানীয় কৃষকরাও খুশি। গত কয়েক দশক আগেও পাহাড়ি জনপদবাসী এত সুযোগ সুবিধা পায়নি।

খাগড়াছড়িতে ৩৯৭ কিমি সড়কের অধিকাংশই উঁচু নিচু পাহাড়ি এলাকা বেষ্টিত। ভূ-প্রাকৃতিক গঠনের কারণে পাহাড়ি সড়ক নির্মাণে নানামুখী প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে হয়। ৮০’র দশকে অনেকটা অপরিকল্পিতভাবে পার্বত্য অঞ্চলের সড়ক নির্মাণ করা হয়। অতীতে সনাতনী পদ্ধতিতে সড়ক নির্মাণ হওয়ায় তা বেশি টেকসই হত না।

তবে এবার খাগড়াছড়িতে পাহাড়ি সড়ক নির্মাণে ব্যবহার করা হচ্ছে আধুনিক প্রযুক্তি। সম্প্রতি খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি থেকে মাটিরাঙা পর্যন্ত প্রায় ৩৩ কিমি সড়কে ‘সারফেস ওভার লেয়িং’ এর কাজ শুরু করে সরকার। যার সুফল পার্বত্যবাসীর পাশাপাশি ভ্রমণপিপাসুরা পাচ্ছেন।

Share This Article

বরগুনায় বাড়াবাড়ি হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ক্রেন দুর্ঘটনায় দায়ীদের খুঁজে বের করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

রাশিয়া থেকে ভারত তেল কিনতে পারলে আমরা কেন পারবো না : প্রধানমন্ত্রী

প্রাইভেটকারে গার্ডার: নিহতদের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অব্যাহত রাখার বিষয়ে একমত বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

পাকিস্তানের মুলতানে বাস-ট্যাংকার সংঘর্ষে নিহত ২০, আহত ৬

‘হৃদয় ও রিয়া মানসিক ট্রমার মধ্যে আছেন’

তুরস্কের সামরিক বাহিনীর প্রথম নারী জেনারেল ওজলেম ইলমাজ

করোনায় বাল্যবিয়ের শিকার ৪৭ হাজার, শিশুশ্রমে ৭৭ হাজার শিক্ষার্থী

বিআরটি প্রকল্পের কাজ আপাতত বন্ধ: মেয়র আতিক


সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অব্যাহত রাখার বিষয়ে একমত বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

পাকিস্তানের মুলতানে বাস-ট্যাংকার সংঘর্ষে নিহত ২০, আহত ৬

‘হৃদয় ও রিয়া মানসিক ট্রমার মধ্যে আছেন’

তুরস্কের সামরিক বাহিনীর প্রথম নারী জেনারেল ওজলেম ইলমাজ

করোনায় বাল্যবিয়ের শিকার ৪৭ হাজার, শিশুশ্রমে ৭৭ হাজার শিক্ষার্থী

বিআরটি প্রকল্পের কাজ আপাতত বন্ধ: মেয়র আতিক

এবার লঞ্চভাড়া বাড়ল ৩০ শতাংশ

গিটার জাদুকরের জন্মদিন আজ

পোল্যান্ড ও জার্মানির শতাধিক যোদ্ধাকে হত্যার দাবি রাশিয়ার

প্রেমিক যুগল ভেবে ভাই-বোনকে আটকে নির্যাতন, ছাড়াতে এসে বাবাও শিকার

সিনেমাটি ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হবে: সারা

২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে মৃত্যু এক হাজারের বেশি, আক্রান্ত সাড়ে চার লাখ

বনানীতে ট্রাকচাপায় প্রাণ হারালো বাইকবিডির জামিল

ভারতকে নিষিদ্ধ করলো ফিফা

জন্ম নিবন্ধনে মা-বাবার জন্ম সনদ আর লাগছে না