দুপুর ০২:০৮, বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই, ২০২২, ২৩ আষাঢ়

ইউক্রেনে দীর্ঘ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছেন পুতিন: মার্কিন গোয়েন্দা

ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

“আমাদের মূল্যায়ন, প্রেসিডেন্ট পুতিন ইউক্রেনে দীর্ঘস্থায়ী সংঘাতের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন, ডনবাসের সীমানা ছাড়িয়ে তিনি লক্ষ্য অর্জন করতে চাইছেন”, বলেন এভ্রিল হেইনস।

ইউক্রেনে একটি দীর্ঘ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এমনকি, পূর্ব ইউক্রেনে রুশ বাহিনী জয়লাভ করলেও সংঘাত থামবে না বলে সতর্ক করেছেন মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

 

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে ভূখণ্ড দখলের চেষ্টায় সেখানে ভয়াবহ লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী। আর এ কারণেই মার্কিন গোয়েন্দাদের সন্দেহ চলমান সংঘাত আরও দীর্ঘ করার পরিকল্পনা করছেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ দখলের চেষ্টায় বাধা পেয়ে এখন পূর্বের ডনবাস অঞ্চল দখলে সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়েছে মস্কো।

মার্কিন ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের পরিচালক এভ্রিল হেইনস মঙ্গলবার মার্কিন সিনেট কমিটির শুনানিতে বলেন, পুতিন এখনও ডনবাসের বাইরে লক্ষ্য অর্জনের ইচ্ছা পোষণ করছেন। কিন্তু এক্ষেত্রে তাকে নিজের 'উচ্চাকাঙ্ক্ষা এবং রাশিয়ার বর্তমান সামরিক সক্ষমতার' মধ্যে অমিলের সম্মুখীন হতে হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

"আমাদের মূল্যায়ন, প্রেসিডেন্ট পুতিন ইউক্রেনে দীর্ঘস্থায়ী সংঘাতের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন, ডনবাসের সীমানা ছাড়িয়ে তিনি লক্ষ্য অর্জন করতে চাইছেন", যোগ করেন হেইনস।

তিনি আরও বলেন, মার্কিন গোয়েন্দাদের ধারণা, পুতিন কৃষ্ণ সাগরের উপকূলজুড়ে মস্কোপন্থী মলদোভা অঞ্চলের বিচ্ছিন্ন এলাকা ট্রান্সনিস্ট্রিয়া পর্যন্ত দখল করতে চান। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে ২০১৪ সালে রুশ অধিভুক্ত হওয়া ক্রিমিয়া অঞ্চলে পানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে পারবে রাশিয়া। সেইসঙ্গে, ইউক্রেনের মূলভূখণ্ড যেন সমুদ্রপথ ব্যবহার করতে না পারে সে পদক্ষেপও নিতে পারে মস্কো।

মার্কিন কর্মকর্তাদের আরও অনুমান, ইউক্রেনে প্রেসিডেন্ট পুতিন তার লক্ষ্য পরিবর্তন করেননি। যুদ্ধ পরিচালনায় তিনি আরও কঠোর হয়ে উঠতে পারেন। যদিও মস্কো জানিয়েছে, কেবল অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়লেই রাশিয়া পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করবে।

মার্কিন প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থার পরিচালক স্কট বেরিয়ার একই শুনানিতে বলেন, রুশ ও ইউক্রেনীয় বাহিনী উভয়ই কিছুটা অচলাবস্থার মধ্যে রয়েছে।

তবে সর্বশেষ লড়াইয়ে উত্তর-পূর্ব খারকিভ অঞ্চলের চারটি বসতি পুনর্দখলের দাবি করেছে ইউক্রেন। ইউক্রেনীয় বাহিনীর ভাষ্যমতে, চেরকাসি টাইশকি, রুস্কি টাইশকি, রুবিঝনে ও বায়রাক এলাকা রাশিয়ার কাছ থেকে পুনরুদ্ধার করেছে তারা।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে রাশিয়া- ইউক্রেনের মধ্যে চলছে সরাসরি সশস্ত্র সংঘাত। এই সঙ্ঘাতকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন 'বিশেষ সামরিক অভিযান' হিসেবে উল্লেখ করলেও পশ্চিমাবিশ্ব তা মানতে নারাজ। পশ্চিমের মতে ইউক্রেনে 'যুদ্ধ' পরিচালনা করছে রাশিয়া। এরমাঝে দুই দেশের মধ্যে কয়েক দফা শান্তি আলোচনার উদ্যোগ নেওয়া হলেও শেষ পর্যন্ত তা সফল হয়নি। দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে চলমান রয়েছে এ সংঘাত।

 

সূত্র: বিবিসি, আল জাজিরা

Share This Article


সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ

আমেরিকার স্যাংশনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সব দেশ: প্রধানমন্ত্রী

ঈদ ঘনিয়ে আসতেই জমজমাট হচ্ছে কোরবানির হাট

২০ বছরে ইউরোর রেকর্ড দর পতন

এবার ঈদে রাজধানী ছাড়বে প্রায় ৮০ লাখ মানুষ

মাঙ্কিপক্স ৫৮ দেশে ছড়িয়েছে, জরুরি বৈঠকে বসছে ডব্লিউএইচও

মহাসড়কে মোটরসাইকেল চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আজ থেকে ৭ দিন

পরী মনির নামে মামলা করলেন ব্যবসায়ী নাসির

বড় বিপর্যয় এড়াতে ‘দেউলিয়া’ শ্রীলঙ্কা ছাড়ার হিড়িক

পাকিস্তানে ভারী বর্ষণে ৭৭ জনের প্রাণহানি

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ২০ কিলোমিটার যানজট

নুপুর শর্মার মাথার দাম ঘোষণা করায় আজমির শরিফের খাদেম গ্রেপ্তার

জনমত জরিপ: জনসনের পদত্যাগ চায় ৬৯% ব্রিটিশ

গরমে মাইগ্রেনের যন্ত্রণা থেকে রক্ষা পেতে যা করবেন

সিরিজ বাঁচানোর লক্ষ্য বাংলাদেশের