যুদ্ধ হলে ৭১’র মতো পরিস্থিতি তৈরি করবে ভারতীয় বাহিনী : জেনারেল নারাভানে

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ১০:৫০, শনিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল মনোজ মুকন্দ নারাভানে হিন্দি টিভি চ্যানেল ‘আজতক’-এর এক বিশেষ অনুষ্ঠানে বলেন, ১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময় আমার বয়স ছিল মাত্র ১১ বছর। সে কারণে সেসময়ে আমি যুদ্ধে ছিলাম না। আমি কারো সাথে মারামারি করি না। কিন্তু ভবিষ্যতে যুদ্ধ হলে ভারতের তিন বাহিনী একাত্তরের মতো হাল করে ছাড়বে।

 

 জেনারেল নারাভানে এজেন্ডা আজতকের ‘সবচেয়ে বড় বিজয়ের ৫০ বছর’ অধিবেশনে বক্তব্য রাখছিলেন। এই অধিবেশনটি ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অর্জিত বিজয়ের উপর রাখা হয়েছিল। ১৯৭১ সালের ৩ ডিসেম্বর ভারতীয় বাহিনী পাকিস্তানের কাছ থেকে জয়লাভ করেছিল। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধকে এখনো ভারতীয় মিডিয়া পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জয়লাভ হিসেবে দেখছে।

জেনারেল নারাভানে বলেন, ‘একাত্তরে আমাদের তিন বাহিনী একসঙ্গে বিজয় অর্জন করেছিল। আমরা সবাই একসাথে ছিলাম। সম্পূর্ণ সমন্বয় ছিল, সে কারণেই আমরা এই দুর্দান্ত জয় পেয়েছিলাম। ভবিষ্যতে যদি কখনও যুদ্ধ হয়, তবে তিনটি বাহিনীই একত্রে একইরকম সাফল্য অর্জন করবে। ১৯৭১ সাল থেকে ৫০ বছর হয়ে গেছে। এই কয়েক বছরে অনেক পরিবর্তন হয়েছে। অতীতের যুদ্ধ আর এখনকার যুদ্ধের মধ্যে পার্থক্য আছে। এখন যুদ্ধটা টেস্ট ম্যাচের মতো নয়, হয়ে গেছে টি- টোয়েন্টি। সে সময় আগে থেকে প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু এখন আর প্রস্তুতির সুযোগ থাকবে না। আমাদের সবসময় প্রস্তুত থাকতে হবে।’

জেনারেল নারাভানে বলেন, ১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময় আমার বাবা দিল্লিতে কর্মরত ছিলেন। আমরা বসন্ত বিহারে থাকতাম। আমাদের বলা হয়েছিল যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হতে। আমরা জানালায় কালো কাগজ রেখেছিলাম। সাইরেন বাজলে তিনি প্রয়োজনীয় নির্দেশ পালন করতেন। তখন ভাবিনি যে আমি সেনাপ্রধান হব।

জেনারেল নারাভানে বলেন, ১৯৭১ সালের ৯ বছর পর আমি সেনাবাহিনীতে যোগদান করি। সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট হই। নিয়োগের পরে, সৈনিক এবং তরুণ অফিসারদের পড়ার জন্য একটি ডাইজেস্ট দেওয়া হয়। আমিও পড়েছি। ১৯৭১ সালের যুদ্ধ নিয়ে অনেক পাতা ছিল এতে। একটা বিষয় পরিষ্কার হয়ে গেল যে, একাত্তরের মার্চ-এপ্রিল থেকেই সবাই জানত যে যুদ্ধ হতে যাচ্ছে। প্রস্তুতি কেমন চলছে? প্রশিক্ষণের উপর জোর দেওয়া হয়েছিল। ওই ডাইজেস্টে সব লেখা থাকত। ওই পাতাগুলো থেকে মনে হচ্ছিল এখন কী ঘটতে যাচ্ছে। সেই লড়াইয়ে অংশ নেওয়া অফিসারদের নাম ছিল। তাদের অনেক গল্প ছিল। যখন আমি এটি পড়ি, তখন আমার মনে হতো আমি সেই লড়াইয়ের অংশ ছিলাম।

তিনি বলেন, আমাদের কৌশল ও পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনতে হবে। গত ৫০ বছরে প্রযুক্তি অনেক এগিয়েছে। আমাদের প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে যাতে আমরা আরও কার্যকর হতে পারি বলেও মন্তব্য করেন জেনারেল মনোজ মুকন্দ নারাভানে।

Share This Article


জাপানের ওপর দিয়ে ব্যালিস্টিক মিসাইল ছুড়ল উত্তর কোরিয়া

ফাইল ফটো

‘আবেগ’ নিয়ে রাশিয়ার কিছু করা উচিত হবে না: রুশ মুখপাত্র

ইমরান খান

ইমরান খানের সেই মামলা তুলে নিল আদালত

ফাইল ফটো

রিজার্ভ সেনাদের বাড়ি পাঠিয়েছে রাশিয়া

সাভান্তে পাবো

চিকিৎসা বিজ্ঞানে নোবেল পেলেন সাভান্তে পাবো

ক্রিমিয়ার রুশ বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণ, যুদ্ধবিমানে আগুন: রিপোর্ট

ঢাকায় আসছেন কসোভোর উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিয়ানমারে জান্তা বিরোধী প্রতিরোধ যুদ্ধে ৩ দিনে নিহত ৬০ জান্তা সেনা

ইরানে বিক্ষোভ-সংঘর্ষ, আটকা পড়েছেন বহু শিক্ষার্থী

সহিংসতা বন্ধে পুতিনের কাছে পোপের আকুতি

পাকিস্তানে বন্যার ফল হতে পারে সুদূরপ্রসারী

জম্মু-কাশ্মীরে পৃথক হামলায় নিহত ২