বাংলাদেশে ব্যবসায় সম্ভাবনা দেখছে ব্রিটিশ সরকার

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ০২:০৯, শুক্রবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের বাণিজ্যিক সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। বাংলাদেশের রপ্তানি পণ্যের তৃতীয় বৃহত্তম গন্তব্য যুক্তরাজ্য। পাশাপাশি, এ দেশে বিনিয়োগ রয়েছে বহু ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানের। বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য স্থানীয় ব্যবসায়ীদের উৎসাহিত করতে বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে ব্রিটিশ সরকার। তাদের সরকারি ওয়েবসাইটেও বাংলাদেশে ব্যবসা পরিস্থিতি সম্পর্কে বিশদ বিবরণ রয়েছে। 

এতে দেখা যায়, বাংলাদেশে ব্যবসা করার ক্ষেত্রে নানা সুবিধার পাশাপাশি বেশ কিছু সমস্যার কথা উল্লেখ করেছে যুক্তরাজ্য সরকার। আর তার মধ্যে ওপরের দিকে রয়েছে চরম দুর্নীতি সমস্যা।

যুক্তরাজ্য সরকারের ওয়েবসাইটে এসব তথ্য যুক্ত করা হয় ২০১৪ সালে। আর তা সবশেষ হালনাগাদ হয়েছে ২০১৫ সালের ২৩ জুলাই। এ কারণে বেশ কিছু তথ্য পুরোনো মনে হতে পারে।

২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে চায় বাংলাদেশ। দেশটিতে অন্তত ১০০ ব্রিটিশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান কার্যক্রম চালাচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে এইচএসবিসি, ইউনিলিভার, জিএসকের মতো খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানগুলো।

বাংলাদেশে ব্রিটিশ ব্যবসায়ীরা কাজ করতে এলে যেসব সুবিধা পাবেন, তার মধ্যে রয়েছে- এ দেশে ইংরেজি বহুল ব্যবহৃত একটি ভাষা, ব্রিটিশ পণ্যকে বাংলাদেশি ব্যবহারকারীরা বিশ্বাসযোগ্য মনে করেন। এ দেশে ব্রিটিশ পণ্য, যন্ত্রপাতি ও পরিষেবার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এখানে যন্ত্রপাতি আমদানিতে রেয়াতি শুল্ক সুবিধা দেওয়া হয়।

বাংলাদেশি বাজারের শক্তি সম্পর্কে ব্রিটিশ সরকার বলেছে, গত ১৬ বছরে দেশটির অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে অন্তত ৫ দশমিক ৩ শতাংশ করে। ক্রেডিট রেটিং স্থিতিশীল। গত এক দশকে দারিদ্র্য কমেছে প্রায় অর্ধেক। তাদের শ্রমবাজার প্রতিযোগিতামূলক। বাংলাদেশের তৈরি পোশাক রপ্তানি পাঁচ বছরে চারগুণ বেড়েছে।

Share This Article