বন্দুক হামলায় প্রাণে বেঁচে ৫১০ কোটির ক্ষতিপূরণ দাবি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ১১:৩২, বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের চেসাপিক শহরে মার্কিন বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান ওয়ালমার্টের একটি স্টোরে গত ২২ নভেম্বর ছয়জনকে গুলি করে হত্যা করেন ওই স্টোরের শিফট ম্যানেজার আন্দ্রে বিং।

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স বুধবার (৩০ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সেই ঘটনায় বেঁচে যাওয়া দোনা প্রিলু নামে এক নারী মঙ্গলবার ওয়ালমার্টের বিরুদ্ধে ৫০ মিলিয়ন ডলারের ক্ষতিপূরণ মামলা দায়ের করেছেন। বাংলাদেশী অর্থে যা প্রায় ৫১০ কোটি টাকার সমান।

ওই নারীর অভিযোগ, স্টোর ম্যানেজার আন্দ্রে বিং গুলি চালানোর কয়েকদিন আগ থেকেই বিভিন্ন ইঙ্গিত ও অসংগতিপূর্ণ আচরণ করছিলেন। এগুলো উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ জানলেও তারা কোনো ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছিল।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে, হামলার পর দোনা প্রিলু ভয় ও আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। নিজ চোখের সামনে এমন ভয়ানক ঘটনা দেখে তিনি শারীরিক ও মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন।

এছাড়া মামলায় প্রমাণ হিসেবে ম্যানেজার আন্দ্রে বিংয়ের বিভিন্ন অসঙ্গতিপূর্ণ ও সন্দেহজনক আচরণের একটি তালিকা দেওয়া হয়েছে। যেগুলো তিনি বিভিন্ন সময় প্রকাশ করেছেন। কিন্তু দোনা প্রিলু দাবি করেছেন তা সত্ত্বেও অন্য ম্যানেজাররা হামলাকারী বিংয়ের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেননি।

মামলায় বলা হয়েছে, ‘দোনা প্রিলুর বাঁ পাশের কান ঘেষে গুলি যায় এবং অল্পের জন্য তিনি বেঁচে যান। কিন্তু নিজের অন্য সহকর্মীদের করুণ পরিণতি বরণ করতে দেখেন তিনি।’

বেঁচে যাওয়া নারীর মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে, হামলাকারী ম্যানেজার আন্দ্রে বিংয়ের সঙ্গে ওয়ালমার্টের কয়েকজন কর্মীর ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব ছিল। তিনি গুলি চালিয়ে সহকর্মীদের হত্যা করতে পরিকল্পনা সাজান। তার কাছে হত্যা তালিকা (কিল লিস্ট) ছিল এবং থ্যাংকসগিভিং ছুটির আগে তিনি এ ঘটনা ঘটান।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে, আন্দ্রে বিংয়ের রহস্যময় আচরণ নিয়ে ওয়ালমার্টের ম্যানেজাররা জানতেন। অথবা তাদের জানা উচিত ছিল বিং এমন কিছু ঘটাতে পারেন। এছাড়া তার বিভিন্ন সন্দেহজনক আচরণের কথা উল্লেখ করা হয়েছে এতে। বলা হয়েছে, গুলি চালানোর কয়েকদিন আগে বিং একাধিকবার তার সহকর্মীদের জিজ্ঞেস করেছিলেন, যদি গুলির ঘটনা ঘটে সেখান থেকে বাঁচার প্রশিক্ষণ নিয়েছেন কিনা। যখন তার সহকর্মীরা জানিয়েছিল, তারা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। তখন বিং কোনো কথা না বলেই চলে যেতেন।

এছাড়া বিং ওয়ালমার্টের অন্যান্য ম্যানেজারদের নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, যদি তাকে চাকরিচ্যুত করা হয় বা কোনো ধরনের শাস্তি দেওয়া হয় তাহলে তিনি ‘হিংস্র’ হবেন। মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে, এমন ঘটনা ঘটানোর আগে বিংকে শাস্তি দেওয়া হয়েছিল। ফলে সে যে বড় কোনো ঘটনা ঘটাবে সেটি প্রায় নিশ্চিত হওয়া গিয়েছিল। এছাড়া খারাপ ব্যবহার করার দায়ে আগেও বিংকে কয়েকবার সতর্ক করা হয়েছিল। তবুও ওয়ালমার্ট তাকে চাকরিতে বহাল তবিয়তে রেখেছিল। কারণ অন্য ম্যানেজাররা তাকে পছন্দ করতেন।

এদিকে এ ঘটনার দুইদিন পর ম্যানেজার আন্দ্রে বিংয়ের লেখা একটি ডেথ নোট উদ্ধার করে পুলিশ। সেই নোটে লেখা ছিল, তার সহকর্মীরা তার খারাপ সময়ে  তাকে নিয়ে বিদ্রুপ, হাসি-তামাশা করত। এ নিয়ে তাদের ওপর ক্ষুদ্ধ ছিলেন। কয়েকজনের নামও উল্লেখ করেছেন বিং। এছাড়া সেই ডেথ নোটে একজনকে ছেড়ে দেওয়ার কথাও বলেছেন তিনি।

সূত্র: রয়টার্স

Share This Article