জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দেশের নদ-নদী!

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ১০:৪৪, মঙ্গলবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২১, ১৩ পৌষ ১৪২৮
জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দেশের নদ-নদী!
জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দেশের নদ-নদী!

নিজস্ব প্রতিবেদক: নদীমাতৃক বাংলাদেশে দখল আর দূষণে এখন নদ-নদী হারিয়ে যেতে বসেছে। অনেক স্থানে মানচিত্র থেকে ইতোমধ্যেই হারিয়ে গেছে নদ-নদীর অস্তিত্ব। একসময়ের নদীকেন্দ্রিক জীবিকায় নির্ভরশীলরা এখন পেশা বদলে অচেনা পেশায় টিকে থাকার সংগ্রামে লিপ্ত। নদ-নদীর প্রবাহ বন্ধ করে রাজনৈতিক প্রভাবশালীরা বাণিজ্যিক ব্যবহার করছেন। বেশির ভাগ নদ-নদীই অবৈধ দখল, পলি পড়া ও সংস্কারবিহীন অযত্নে ভরা যৌবন হারিয়ে এখন মরা খাল।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কুমার ও আড়িয়াল খাঁ নদের তীরে গড়ে উঠা মাদারীপুরের প্রধান নদ-নদী পদ্মা, পালরদী, নিম্নকুমার, টরকী ও ময়নাকাটার এখন বেহাল দশা। কোথাও নাব্যতা সংকট আবার কোথাও দখল আর দূষণে অস্তিত্ব ঝুঁকিতে। কুমার নদে বালু ফেলে দখল করে অবৈধ বাড়িঘর, দোকানপাট, করাতকল ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বসবাস করছেন ৫ শতাধিক দখলদার। দখলদারের সংখ্যা বাড়ছে।

শুধু কুমার নয়, অন্য নদীগুলোরও একই অবস্থা। দখল-দূষণে কুষ্টিয়ার আট নদ-নদী হারিয়ে যেতে বসেছে। এ নদ-নদীর বেশির ভাগই পদ্মা-গড়াইয়ের শাখা হলেও অবৈধ দখল, পলি পড়া ও দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় ভরা যৌবন হারিয়ে এখন মরা খাল। সরকারি হিসাবে কুষ্টিয়া জেলায় নদ-নদী ও খাল-বিল দখলকারীর সংখ্যা প্রায় ৩ হাজার। যদিও তা এখন সরকারি খাতায়ই সীমাবদ্ধ।

নাটোরের নারদ, বারনই, নন্দকুঁজা, আত্রাই, গুমানী, বড়ালসহ ৩২টি নদ-নদী মৃতপ্রায়। নদ-নদী এলাকার প্রায় ৫০ লাখ মানুষ পরিবেশ বিপর্যয়ের মুখে। পানির অভাবে মিলছে না মাছ। কৃষিকাজে বেড়েছে খরচ। হারিয়ে যেতে বসেছে জেলার বড়াল, মুছা, নারদ, নন্দকুঁজা, আত্রাইসহ ছোট বড় অধিকাংশ নদ-নদী।

খুলনার রূপসা, ভৈরব, ময়ূর, ডুমুরিয়ার ভদ্রা, হরি, সুখ ও হামকুড়া নদ-নদীর জায়গা দখল করে অবৈধ স্থাপনা ইটভাটা, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, বাড়িঘর, হাঁস-মুরগির খামার তৈরি করেছেন। এর মধ্যে রূপসা নদী দখলমুক্ত রাখতে ২০১৪ সাল থেকে নদীর পাড়ে খাসজমি ইজারা বন্ধ করে দেয় জেলা প্রশাসন। তারপরও থেমে নেই এসব কর্মকাণ্ড।

এছাড়া, সুরমা, ডুমুরিয়ার ভদ্রা, হরি, হামকুড়া, ঘাঘট, শ্যামাসুন্দরী, ইছামতী, বুড়াইল, খোকসা ও আলাইকুমারী, মহানন্দা, আত্রাই, ছোট যমুনা, তুলসীগঙ্গা, শিব, পুনর্ভবা ও নাগরসহ দেশের অন্যতম বৃহৎ নদী তিস্তাও রয়েছে অস্তিত্ব সংকটে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে নদী রক্ষায় কার্যকর ভূমিকা না নিলে দেশের মানচিত্র থেকে বিলিন হবে অধিকাংশ নদ-নদী। এতে হুমকির মধ্যে পড়বে দেশের জীববৈচিত্র।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article

যাঁরা ‘আমি রাজাকার’ বলেন, তাঁদের শেষ দেখে ছাড়বে ছাত্রলীগ

এ যুগের রাজাকারদের পরিণতি ওই যুগের রাজাকারদের মতই হবে : শিক্ষামন্ত্রী

কোটা আন্দোলনকারীদের হটাতে অ্যাকশনে পুলিশ

কোটা পুনর্বহাল করে হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ

শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধুকন্যাকে কটূক্তি করেনি, কেউ শিখিয়ে দিয়েছে

আর্জেন্টিনার ইতিহাস গড়া জয়, কোপার শিরোপা মেসিদের

ঢাবি হলের কক্ষে কক্ষে কোটাব্যবস্থা নিয়ে প্রচারপত্র দিলেন ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতারা

প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী

পারলে সশরীরের ঢাকায় যেতাম, আন্দোলন নিয়ে কবীর সুমন

যুদ্ধবিরতির চুক্তি নিয়ে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ


সরকার শান্তিপূর্ণ সমাধানের দিকে এগোতে চায় : তথ্য প্রতিমন্ত্রী

আইনমন্ত্রীর প্রস্তাব নিয়ে আন্দোলনকারীরা আলোচনায় বসেছেন

লিবিয়া থেকে ফিরলেন ১৪৪ বাংলাদেশি

জাহাঙ্গীরনগর ক্যাম্পাস ছাড়ছেন শিক্ষার্থীরা

নিজ দেশের নাগরিকদের ঘরে থাকার আহ্বান ভারতীয় হাইকমিশনের

শিক্ষার্থীদের পরিবর্তে আজ মাঠে নেমেছে বিএনপি-জামায়াত: কাদের

পুলিশ সদস্যদের ওপর সাধারণ শিক্ষার্থীদের হামলা, উদ্ধার করল র‌্যাবের হেলিকপ্টার

‘কমপ্লিট শাটডাউনেও’ চলবে বাস

প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী

পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের পর ঢাবি ছাড়ছেন শিক্ষার্থীরা

শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান পুলিশ সদর দপ্তরের

হত্যাকান্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শান্তি নিশ্চিক করা হবে : প্রধানমন্ত্রী