স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর হত্যা, ৫ আসামির আমৃত্যু কারাদণ্ড

  প্রতিনিধি
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৫:২৩, বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

রংপুরের উপজেলার মর্নেয়া ইউনিয়নের নরসিংহ গ্রামে ১৬ বছর বয়সী স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যার দায়ে পাঁচ আসামিকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারক রোকনুজ্জামান এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, আবুজার হোসেন, আলমগীর হোসেন, নাজির হোসেন, আব্দুল করিম এবং আমিনুর রহমান। এদের মধ্যে আলমগীর হোসেন ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন।

মামলার সূত্রে জানা যায়, রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার নরসিংহ গ্রামের আইয়ুব আলীর কিশোরী কন্যার সঙ্গে একই গ্রামের সামসুল আলমের ছেলে আবুজার রহমানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্পর্কের এক পর্যায়ে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়লে আবুজারকে বিষয়টি জানায়।

২০১৫ সালের ১৪ মে তারিখে নিহত কিশোরীর বাবা মা এক আত্মীয়র বাড়িতে দাওয়াত খেতে যায়। এসময় বাসায় একা পেয়ে আসামি আবুজার তাদের বাসায় এসে কিশোরীকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর আবুজারসহ তার ৪ বন্ধু মিলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। পরে ওই কিশোরী সব ঘটনা তার বাবামাকে জানাবে বলে প্রকাশ করলে আসামিরা তাকে জবাই করে লাশ বাড়ির অদূরে একটি ক্ষেতে ফেলে চলে যায়। 

এ ঘটনায় নিহত কিশোরীর বাবা আইয়ুব আলী বাদী হয়ে গঙ্গাচড়া থানায় মামলা দায়ের করে। এলাকাবাসী আসামি আবুজারকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে।

পরে পুলিশ তার দেয়া জবানবন্দির ওপর ভিত্তি করে অপর ৩ আসামি নাজির হোসেন, করিম বাদশা ও আমিনুরকে গ্রেপ্তার করে। আসামিরা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দিতে গণধর্ষণ ও জবাই করে হত্যার কথা স্বীকার করে। মামলায় ১২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য ও জেরা শেষে ৫ আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে আমৃত্যু সশ্রম কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন। 

বিষয়ঃ ধর্ষণ

Share This Article