উগ্রবাদ প্রচারের জন্য পাকিস্তানের ব্যাপক সমালোচনা করেছেন বিশেষজ্ঞরা

  বাংলাদেশের কথা ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ১১:৩০, মঙ্গলবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২১, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

উগ্রপন্থার প্রচার ও কট্টর মৌলবাদীদের ব্যবহারের জন্য পাকিস্তানের ব্যাপক সমালোচনা করেছেন রাজনীতিবিদ, কূটনীতিক ও বিশেষজ্ঞরা। পাকিস্তানের এসব কর্মকাণ্ড আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য হুমকিস্বরূপ। দিল্লিতে আইআইএম রোহতক আয়োজিত ‘র‌্যাডিক্যালাইজেশন : থ্রেটস টু দি আর্কিটেকচার অব গ্লোবাল স্ট্যাবিলিটি’ শীর্ষক দুই দিনের আন্তর্জাতিক সম্মেলনে তারা এ কথা বলেন।

সম্মেলনে ২৫টিরও বেশি দেশের বক্তা ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। ভারতে আফগানিস্তানের রাষ্ট্রদূত ফরিদ মামুন্দজে বলেন, আফগান মাটি থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর পাকিস্তান সেনাবাহিনী মার্কিন বাহিনীর রেখে যাওয়া অস্ত্র ও গোলাবারুদ লুট করেছে। বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ শত শত সামরিক যানবাহন শিয়ালকোট এবং পাকিস্তানের পাঞ্জাবের অন্যান্য স্থানে নিয়ে গেছে, যেখানে তাদের নিজস্ব সামরিক সরঞ্জাম তৈরি করা হয়।

তিনি আরও বলেন, গত দুই দশকে আফগানিস্তানের পুনর্গঠনে ভারত যে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেছে, তাতে ভারতকে আফগানিস্তান সম্পর্কিত ইস্যুতে গঠিত ট্রোইকার অংশ করা উচিত। এ ছাড়া আফগানিস্তান সংকট মোকাবেলার জন্য ভারতকে যেকোন আন্তর্জাতিক সংস্থার আলোচনার অংশ হওয়া উচিত।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হিসেবে ভারতের অবস্থান আফগানিস্তানের জন্যও উপকার হবে বলে জানান ফরিদ মামুন্দজে। নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের উপস্থিতি অব্যাহত রাখতে হবে বলে মতামত দেন তিনি। তিনি আরও জানান, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অন্তর্বর্তীকালীন তালেবান সরকারের উপর অবশ্যই চাপ প্রয়োগ করতে হবে যাতে স্পষ্টভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও নারীদের অবস্থার উন্নতি করা যায়।

সম্মেলনে বাংলাদেশের সংসদ সদস্য হাসানুল হক ইনু ভারত ও পাকিস্তানের বৈদেশিক নীতির তুলনা করেছেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে ভারত যখন আফগানিস্তানে স্কুল ও অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণে মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে, তখন পাকিস্তান ৩০ লাখেরও বেশি বাংলাদেশি নাগরিককে হত্যা করেছে। এ ছাড়া ২ লাখ নারীর শ্লীলতাহানি করেছে।

দুই দিনব্যাপী সম্মেলনের সমাপনী বক্তব্যে অধ্যাপক ধীরজ শর্মা বলেন, ‘এটা স্পষ্ট হয়েছে, উগ্রপন্থা বা মৌলবাদ কিছু গোষ্ঠীর জন্য ব্যবসায় পরিণত হয়েছে। তারা নিজস্ব প্রচারণার জন্য ধর্মকে পণ্য হিসেবে ব্যবহার করছে। যে গোষ্ঠীগুলো মৌলবাদের ব্যবসার প্রচার করেছে তারা এর নেতিবাচক বাহ্যিক দিকগুলো বিবেচনায় নেয়নি। এর ফলে সমগ্র জাতিকে ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই মৌলবাদের নেতিবাচক দিক সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। এক্ষেত্রে এ ধরনের সম্মেলন অবদান রাখতে পারে। দেশগুলোর জন্য মৌলবাদের ঝুঁকি কমানোর অন্যতম উপায় হলো সুশাসন এবং সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতি আস্থা তৈরি করা।’

সূত্র : এনএনআই

Share This Article

কোটা পদ্ধতির যৌক্তিক সংস্কার আনা এখন সময়ের দাবি: আরেফিন সিদ্দিক

স্বামীকে তালাক দিলেন রাজকন্যা শেখা মাহরা

র‍্যাঙ্কিংয়ে অবনতি ব্রাজিলের, শীর্ষেই থাকছে আর্জেন্টিনা

আন্দোলনকারীদের থেকে ইতিবাচক বার্তা পেয়েছি: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

‘কোটা সংস্কার নিয়ে প্রয়োজনে সংসদে আইন পাস হতে পারে’

চার দফা না মানলে আট দফা নিয়ে কথা বলার সুযোগ নেই

অচল দেশ সচল হয়েছে, সর্বমহলে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা

আন্দোলন নিয়ে ভারত সরকারকে ‘নোট’ দিয়েছে ঢাকা : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিরাপত্তার স্বার্থে শিক্ষার্থীদের নিজগৃহে অবস্থানের অনুরোধ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের

তালিকা হচ্ছে গা-ঢাকা দেওয়া আওয়ামী লীগ নেতাদের


ভিয়েতনাম যুদ্ধে ব্যবহৃত মডেলের রাইফেল দিয়ে ট্রাম্পকে গুলি!

ছবি: টমাস ম্যাথিউ ক্রুকস।

ট্রাম্পের ওপর হামলাকারী কে এই টমাস ম্যাথিউ

খান ইউনিসে ইসরাইলি গণহত্যা, মুখ খুললেন জাতিসংঘ মহাসচিব

৪৬ হাজার কোম্পানি বন্ধ, পতনের মুখে ইসরাইল!

ট্রাম্পের ওপর হামলার ঘটনা হত্যাচেষ্টা: এফবিআই

ট্রাম্পের ওপরে হামলা, যা বললেন বাইডেন

গুলিতে আমার কান ফুটো হয়ে গেছে: ট্রাম্প

গাজায় ৭০ হাজারের বেশি মানুষ হেপাটাইটিসে আক্রান্ত

যুদ্ধবিরতির চুক্তি নিয়ে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

ইদ্দত মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন ইমরান খান ও বুশরা বিবি

তিন ক্রু নিয়ে রাশিয়ায় যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত

ইসরায়েলি বাহিনী এলাকা ছাড়তেই বেরিয়ে এলো লাশের পর লাশ